নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লালিত স্বপ্ন একটি সুখী-সম্মৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। আমরা প্রত্যেকে যার যার অবস্থান থেকে সমস্ত মেধা, প্রজ্ঞা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করবো। মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একজন ক্যারিশমাটিক নেতা ছিলেন। তিনি তার অসাধারণ মেধা ও প্রজ্ঞা এবং অসীম সাহসের সঙ্গে একটি পরাধীন জাতির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন এবং একটি স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। যুগে যুগে অনেক রাজনীতিক নানা আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে, কবি-সাহিত্যিকরা তাদের লেখনিতে স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু এদের কেউ তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। বঙ্গবন্ধু বাঙালির মুক্তিসংগ্রাম হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করেছিলেন এবং আমাদের একটি স্বাধীন ভূখন্ড উপহার দেন। তিনি একজন বলিষ্ঠ নেতা হিসেবে আপামর জনসাধারণের হৃদয়ে স্থান পেয়েছেন। ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনে স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দিয়েছিলেন।

মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেছেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বেশি হত্যাকা- হয়েছিলো ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে। এ যুদ্ধে ৭ লাখ মা-বোন বর্বরোচিত নির্যাতনের শিকার হয়। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এগিয়ে চলা নিয়ে তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হলো পুরো জাতির দিক-নির্দেশক। নোবিপ্রবি হলো তারুণ্য নির্ভর বিশ্ববিদ্যালয়, এখানে দেশসেরা মেধাবীরা অধ্যায়ন করে। আর আমাদের শিক্ষার্থীরাই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে জাতিকে পথ দেখাচ্ছে। আজ কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সহ¯্র কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অনন্য নজির স্থাপন করেছে। আর এভাবেই আমারা বিশে^র বুকে একটি উন্নত আত্মমর্যাদাশীল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার কাজ করে যাচ্ছি।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় (২৬ মার্চ ২০১৯) বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজি মো. ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী ও ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্যান্যের মাঝে বক্তৃতা করেন নোবিপ্রবি কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সৈয়্যদ আতিকুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. গাজী মো. মহসিন, রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, রিয়াকুক বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স ফেলো নাকায়ামা কেইকো, অফিসার্স এসোসিয়েশন এর সভাপতি ডা. মো. মোখলেস-উজ-জামান, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, কর্মচারীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মাহবুবুর রহমান লিপসন, নোবিপ্রবি’র ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম রবিন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি ও সংস্কৃত বিভাগের অধ্যাপক ড. দিলিপ বড়ুয়া, নোবিপ্রবি ইনস্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দ, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, প্রক্টর, দপ্তরসমূহের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়কবৃন্দ, নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। 
সভা সঞ্চালনা করেন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং ছাত্র পরামর্শ ও নিদের্শনা পরিচালক জনাব মো. নাসির উদ্দিন। সভায় জাপানের রিয়াকুক বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মাননীয় উপাচার্যকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, মাননীয় উপাচার্যের আসন্ন জাপান সফরে তাকে ‘ ফ্রেন্ডস অব হিউম্যানিটি’ সম্মাননায় ভূষিত করা হবে।

দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ পালন করে নোবিপ্রবি পরিবার। দিবসটি উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, ইনস্টিটিউট, হল ও ছাত্রফোরামগুলো ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া দিবস উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ভোজ ও অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে। এদিন সকাল ৯টায় দিনের প্রথমভাগে মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান এর নির্দেশনায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ব্যতিক্রমী আয়োজনে সহস্র কণ্ঠে ‘বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী ও মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ সফল হোক’ শিরোনামে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করে। এরপর বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি কেন্দ্রীয় মাঠ থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ও পরিষদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শেষ হয়। এরপর অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভাশেষে বিকেলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া এর আগের দিন (২৫ মার্চ ২০১৯) রাত ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গনে ২৫ মার্চের কালো রাতে বাঙালি জাতির ওপর বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ স্মরণে ‘ব্ল্যাক আউট ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।এর মাঝে আজ (২৬ মার্চ ২০১৯) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় গোলচত্ত্বরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নোবিপ্রবি’র শিক্ষার্থীদের জন্য ক্রয় করা তিনটি ৬০ সিটের গাড়ির শুভ উদ্বোধন করেন মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান।