You are here: Home

Articles

নোবিপ্রবিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

নোবিপ্রবি/জনসংযোগ-০৩/২০১৭     ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

নোবিপ্রবিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

rally 2

 

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি)) মহান একুশে ফেব্রুয়ারী ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৭ উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটির প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পু®পস্তক অর্পণ করে ভাষাশহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান। রাত ১২টা ১ মিনিটে উপাচার্য নোবিপ্রবি পরিবারের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদন করেন।

Final 1
আজ মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭) দিবসটি উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্ত্বরে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্যের সামনে পতাকা উত্তোলন ও সমবেত সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। পরে মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামানের নেতৃত্বে সকলের অংশগ্রহণে একুশের র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, হল, ইনস্টিটিউটের পাশাপাশি শিক্ষক সমিতি, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এবং অফিসার্স এসোসিয়েন এর পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শেষ হয়। অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ছাত্রফোরাম এবং এলাকাভিত্তিক নানা সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও শহীদ মিনারে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধঞ্জলী নিবেদন করা হয়।

final 3
পরে হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিছ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। এতে সভাপতি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান। অন্যদের মধ্যে উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউছুফ মিঞা, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সেক্রেটারি সাখাওয়াত হোসেন, সভাপতি তারেক মো. রাশেদ উদ্দিন, কর্মচারীদের পক্ষ থেকে জনাব উজ্জ¦ল ও শিক্ষার্থীরা বক্তব্য রাখেন ।
এসময় অনুষদসমুহের ডিন, ইনস্টিটিউট ও দপ্তরসমুহের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, প্রক্টর, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদেও নেতৃবৃন্দ, নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় করেন ছাত্র নির্দেশনা পরিচালক আফসানা মৌসুমী।

নোবিপ্রবিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ইনফরমেশন টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

নোবিপ্রবি/রেজি/জনসংযোগ-০৭/২০১৬/  ১০ নভেম্বর ২০১৬


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
নোবিপ্রবিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ইনফরমেশন টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

DSC 0802


নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি (আইআইটি) এর অধীনে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ইনফরমেশন টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ করে নেয়া হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে আজ শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৭) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন টু এর ভিডিও কনফারেন্সরুমে নবীনবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ইনস্টিটিউটের পরিচালক মোহাম্মদ নুরুজ্জামান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন নোবিপ্রবি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মুহাম্মদ মুশফিকুর রহমান।
এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউট ও দপ্তরসমুহের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, এবছর এ ইনস্টিটিউটের অধীন এক বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্সে ৩০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হন। আর নবাগত প্রথম ব্যাচের এ শিক্ষার্থীদের বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে বরণ করে নিয়েছে নোবিপ্রবি পরিবার। অনুষ্ঠানে নোবিপ্রবি আইসিটি সেলের সহযোগীতায় নির্মীত আইআইটি ইনস্টিটিউটের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উদ্বোধন ও শিক্ষার্থীদের মাঝে আইডি কার্ড বিতরণ করা হয়।

 

নোবিপ্রবিতে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ: ভর্তি ৪-৮ এবং ১৩ ডিসেম্বর

নোবিপ্রবি/রেজি/জনসংযোগ/২০১৬/   ১৪ নভেম্বর ২০১৬


 
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নোবিপ্রবিতে স্নাতক  প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ: 
ভর্তি ৪-৮ এবং ১৩ ডিসেম্বর

result vc

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। আজ সোমবার (১৪ নভেম্বর ২০১৬) বেলা ১২টায় উপাচার্যের দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ভর্তি কমিটির চেয়ারম্যান উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান সাংবাদিকদের সামনে এ ফলাফল প্রকাশ করেন। এর আগে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, মুদ্রণ ও ফলাফল প্রকাশ কমিটির আহ্বায়ক উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন উপাচার্যের নিকট আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল হস্তান্তর করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে ডিন ড. মো. হুমায়ুন কবির, ভর্তি কমিটির সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. মমিনুল হক, পরীক্ষা পরিচালনা উপ কমিটির আহ্বায়ক ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি মেহেদি মাহমুদুল হাসান, প্রভোস্ট ও আসন বিন্যাস উপকমিটির আহ্বায়ক ড. মো. ইউছুফ মিঞা, প্রক্টর মুহাম্মদ মুশফিকুর রহমান, অধ্যাপক ড. সৈয়্যদ আতিকুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

প্রসঙ্গত, গত ১১ ও ১২ নভেম্বর ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজ্ঞান এবং সামাজিক বিজ্ঞান ও বাণিজ্য এ তিন অনুষদের অধীন মোট ১৭টি বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বিস্তারিত ফলাফল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (www.nstu.edu.bd) পাওয়া যাচ্ছে। এবার মোট আবেদনের সংখ্যা ৪৫,৬৪৩; যার মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৬৯%। পাশের হার A  গ্রুপের ৫৭.৬৯%, B গ্রুপের ৮৩.১২%, C গ্রুপের ৭৪.৬১% এবং D গ্রুপের ৪৮.১%। বিষয় নির্বাচন ও ভর্তি কার্যক্রম নিম্নোক্ত সময়সূচী অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সাক্ষাৎকার ও ভর্তি:
৪ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে  A গ্রুপেরমেধাতালিকার ১-৩০৫ পর্যন্ত।
৫ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে A গ্রুপের অপেক্ষমান তালিকার ৩০৬-৬০৫ পর্যন্ত (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে)।
৬ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে B গ্রুপের মেধাতালিকার ১-৩০০ পর্যন্ত।
৭ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে B গ্রুপের অপেক্ষমান তালিকার ৩০১-৫৫০ পর্যন্ত (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে)।
৮ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে C গ্রুপের মেধাতালিকার ১-১২০ পর্যন্ত এবং অপেক্ষমান তালিকার ১২১-২৪০ পর্যন্ত (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে)।
৮ ডিসেম্বর ২০১৬ বিকাল ১২ টা থেকে D গ্রুপের মেধাতালিকার ১-৬০ (বিজ্ঞান); ১-৬০ (বাণিজ্য); ১-২০ (মানবিক) এবং অপেক্ষমান তালিকার ৬১-১৫০ (বিজ্ঞান); ৬১-১২০ (বাণিজ্য); ২১-৪০ (মানবিক) পর্যন্ত (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে)।

১৩ ডিসেম্বর ২০১৬ সকাল ৯ টা থেকে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় অ গ্রুপের মেধাতালিকার ১-১৭ এবং অপেক্ষমান তালিকার ১৮-৩২ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে); উপজাতি কোটায় মেধাতালিকার ১-৬; অপেক্ষমান তালিকার ৭-২০ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে); মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ই গ্রুপের মেধাতালিকার ১-১৮ এবং অপেক্ষমান তালিকার ১৯-৩৩ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে); উপজাতি কোটায় মেধাতালিকার ১-৭; অপেক্ষমান তালিকার ৮-২৫ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে), মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ঈ গ্রুপের মেধাতালিকার ১-৬ এবং অপেক্ষমান তালিকার ৭-১০ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে); উপজাতি কোটায় মেধাতালিকার ১-২; অপেক্ষমান তালিকার ৩-৭ (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে); মুক্তিযোদ্ধা কোটায় উ গ্রুপের মেধাতালিকার ১-৪ (বিজ্ঞান), ১-৩ (বানিজ্য), ১-২ (মানবিক); অপেক্ষমান তালিকার ৫-১২ (বিজ্ঞান), ৪-১৩ (বানিজ্য), ৩-৬ (মানবিক) আসন খালি থাকা সাপেক্ষে এবং উপজাতি কোটায় মেধাতালিকার ১ জন (বিজ্ঞান), ১ জন (বানিজ্য), ১ জন (মানবিক); অপেক্ষমান তালিকার ২-৫ (বিজ্ঞান), ২-৫ (বানিজ্য), ২-৫ (মানবিক) আসন খালি থাকা সাপেক্ষে।
মুক্তিযোদ্ধা কোটায় শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী (মুক্তিযোদ্ধার সন্তান অগ্রাধিকার পাবে) ভর্তি করা হবে।


ভর্তির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র :
১. এসএসসি ও এইচএসসি’র মূল মার্কশিট এবং প্রত্যেকটির একটি করে সত্যায়িত কপি অবশ্যই সঙ্গে আনতে হবে ২. টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড থেকে ডাউনলোডকৃত প্রবেশপত্রের (ভর্তি পরীক্ষার সময় কক্ষ পরিদর্শক কর্তৃক স্বাক্ষরিত) কপি ৩. পাঁচ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি ৪. নাগরিকত্ব সার্টিফিকেট/জন্ম নিবন্ধন/পাসপোর্ট এর সত্যায়িত কপি ৫. মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভর্তিচ্ছু প্রার্থীদের পিতা-মাতার অনুকূলে সরকার কর্তৃক ইস্যুকৃত মুক্তিযোদ্ধা সার্টিফিকেট এবং প্রয়োজনে দাদা-দাদী, নানা-নানীর সম্পর্কের সার্টিফিকেটের মূল কপি এবং সত্যায়িত কপি ৬. উপজাতি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উপজাতি ভিত্তিক প্রত্যয়ন পত্রের মূল কপি ও সত্যায়িত কপি এবং ৭. প্রথম টার্মের ক্রেডিট আওয়ার ফিসহ অন্যান্য ফি-চার্জ বাবদ সকল গ্রুপের জন্য আনুমানিক ২৩,০০০.০০ (তেইশ হাজার) টাকা ভর্তি হওয়ার জন্য সঙ্গে আনতে হবে। উপরোল্লিখিত কাগজপত্র ব্যতিত কোন ছাত্রছাত্রীকে ভর্তির অনুমতি দেয়া হবে না।

[বি: দ্র: মেধাতালিকা ও অপেক্ষমান তালিকা থেকে ভর্তির অনুমতি প্রাপ্ত প্রার্থীদেরকে ৪-৮ ডিসেম্বর ২০১৬; মুক্তিযোদ্ধা এবং উপজাতি কোটা থেকে ভর্তির অনুমতি প্রাপ্ত প্রার্থীদেরকে ১৩ ডিসেম্বর ২০১৬ এর মধ্যে অবশ্যই ভর্তি হতে হবে।]

প্রফেসর মো: মমিনুল হক
সচিব, ভর্তি কমিটি ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ

রেজিস্ট্রার
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

 

 

নোবিপ্রবিতে রসায়ন অলিম্পিয়াডে বিজয়ীদের মাঝে সনদ বিতরণ

নোবিপ্রবি/জনসংযোগ-০৩/২০১৭       ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

নোবিপ্রবিতে রসায়ন অলিম্পিয়াডে বিজয়ীদের মাঝে সনদ বিতরণ

final

সপ্তম বাংলাদেশ রসায়ন অলিম্পিয়াডের প্রাথমিক পর্বে বিজয়ীদের মাঝে সনদ বিতরণ অনুষ্ঠান আজ বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭) বিকেলে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মো. ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। নোবিপ্রবি অ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি এন্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মো. বাহাদুরের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদ বিতরণ করেন। এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন- উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল হোসেন ও অ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি এন্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ আশরাফুল আলম প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ রসায়ন সমিতির আয়োজনে গত ১৩ জানুয়ারি ২০১৭ নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) অ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি এন্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে সপ্তম বাংলাদেশ রসায়ন অলিম্পিয়াডের প্রাথমিক পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এতে বৃহত্তর নোয়াখালীর বিভিন্ন কলেজের উচ্চমাধ্যমিক পর্বের প্রায় ৩০০ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

নোবিপ্রবি শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে পমেটো’র চাষ

নোবিপ্রবি/জনসংযোগ-০৩/২০১৭/          ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
নোবিপ্রবি শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে পমেটো’র চাষ

DSC 0800

 

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) কৃষি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. গাজী মো. মহসীনের তত্ত্বাবধানে পমেটো চাষ শুরু হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে নোবিপ্রবি ক্যাম্পাসে পরীক্ষামূলকভাবে পমেটোর এ চাষাবাদ শুরু হয়। সফলতার মুখ দেখায় এবার স্থানীয় কৃষকরাও এ সবজিচাষে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এ বিষয়ে কৃষি বিজ্ঞানী ড. গাজী মো. মহসীন জানান, একই গাছে আলু (পটেটো) এবং টমেটো এই উৎদাপনশীল গাছটির নাম পমেটো। একই সময়ে এ গাছটিতে আলু ও টমেটোর ফলন হবে। গাছের তলায় মাটির নিচে উৎপাদিত হবে আলু আর ডগায় গাছের প্রতিটি শাখায় ধরবে থোকায় থোকায় টমেটো। শুনতে অদ্ভূত লাগলে এটিই সত্যি বলে জানান খ্যাতিমান এ বিজ্ঞানী।
রুটস্টক হিসেবে আলুর চারা আর সায়ন হিসেবে টমেটোর চারা ব্যবহার করা হচ্ছে। গ্রাফটিং বা জোড়কলম পদ্ধতিতে সোলানেসি গোত্রের ‘ডায়ামন্ট’ জাতের আলুর সাথে ‘মিন্টো সুপার’ জাতের টমেটোর চারাগাছের জোড়া দিয়ে এই পরীক্ষমূলক চাষের সূচনা করা হয়। এক্ষেত্রে দুটির চারার বয়স সমান হতে হয়। চারার বয়স যখন ২৫-৩০ দিন হবে তখন দুটি চারাকে জোড়া লাগানো হয়। এতে করে কিছুদিনের মাঝেই আলুর মূল এবং টমেটোর কান্ডের সংযোগ হয়ে যায়। এতে করে গাছের উপরে কা-ে ফলে টমেটো এবং মাটির নিচে শেকড়ে উৎপাদিত হয় আলু।
ড. মহসীন আরো জানান, এ সবজি চাষ স্থানীয়দের মাঝে ব্যাপক ভিত্তিতে ছড়িয়ে দিতে পারলে এ অঞ্চলের মানুষের সবজি চাহিদা পূরণ হবে। এটি মানুষের প্রয়োজনীয় খাদ্য নিরাপত্তা বাড়াবে। এছাড়া আলুর স্টার্চের সঙ্গে টমেটোর লাইকোপেন যা একই গাছ থেকে পাওয়া যাবে এবং তা ক্যান্সার প্রতিরোধী বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এম অহিদুজ্জামান বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে নোবিপ্রবি ক্যাম্পাসে পমেটোর চাষ হলেও আমরা ব্যাপকভিত্তিতে এর চাষাবাদ করতে আগ্রহী। বাংলাদেশ কৃষিনির্ভর দেশ, আমরা চাই কৃষিতে আরো বেশি গবেষণাবান্ধব কর্মযজ্ঞ হোক।
## সার্বিক যোগাযোগ ##
ড. গাজী মো. মহসীন, সহযোগী অধ্যাপক, কৃষি বিভাগ, নোবিপ্রবি।
মোবাইল : ০১৭১৮৩০৪১৩৭

Latest News

Noakhali Science And Technology University, Sonapur, Noakhali-3814